ENGLISH SYNONYMS & ANTONYMS

 লার্ন ইংলিশ লার্ন উইথ ফান !

  সকলকে সালামঅনেক অনেক শুভেচ্ছাভালোবাসা দিয়ে শুরু করছি আজকের এই পর্ব প্রায় ২ সপ্তাহ পরে এই পোস্ট প্রথমেই এই দেরীর  জন্য আন্তরিক ভাবে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি । এবার আমি আমার আজকের লেসনে  মাত্র পাঁচটি শব্দ নিয়ে আলোচনা করব  দেখবেন ঠিক ঠাক শিখতে পারলে ১০০১২০ টি ওয়ার্ড স্টক হয়ে যাবে ।


আসলে কাজের চাপের মধ্যেও যেটুকু সময় পাই তার মধ্যেই লিখতে হচ্ছে । যাই হোক কাজের কথায় আসি । আজকে আমরা শুরু করব– ইংরেজির অত্যন্ত গুরুত্ব পূর্ণ একটি বিষয়  সিনোনিম ও অ্যান্টোনিমে । শুধু কম্পিটিভ এক্সাম বলে নয় ইংরেজি লেখা বা কম্পোজিসনের ক্ষেত্রেও এর যথেষ্ট গুরুত্ব রয়েছে । আর এমন কোনো এক্সম নেই যেখানে এই সিননিম বা অ্যান্টোনিমের উপরে কোনো প্রশ্ন থাকে না । আর এটা বলতে কোন দ্বিধা নেই আমরা অনেকেই প্রবল উৎসাহ নিয়ে অনেকবারই হয়তো শুরুও করেছি  কিন্তু মূল সমস্যা যেটা হয় সেটা হল 

। ইংরেজির শব্দ গুলির ইউসেজ আমাদের বাংলা শব্দের মত নয় । এর ভিন্ন ভিন্ন শব্দগুলির মধ্যে ভিন্ন ভিন্ন অর্থের পার্থক্য ।

। প্রচুর মুখস্ত করার পর একদিক থেকে আমরা মুখস্ত করি আর আরেক দিক থেকে ক্রমাগত ভুলতে শুরু করি ।

তাহলে উপায় আমি আমার মত করে একটা প্র্যাকটিকাল অ্যাপ্রোচ এর উদাহরন দিতে পারি । আমার মনে হয় আমরা যদি এই ভাবে একটু পরিশ্রম করে একটু একটু করে অভ্যেস করতে থাকি  তাহলে আশা করা যায় দুই থেকে তিন মাসের মধেই পুরোটা না হলেও প্রায় ৮০শব্দ যেগুলি মূলত পরীক্ষায় লাগে সেগুলিকে রপ্ত করে ফেলতে পারব ।  

পদ্ধতি ঃ– আমরা সাধারনত কিভাবে সিনোনিম অ্যান্টোনিম পড়ি যেকোন স্ট্যন্ডার্ড বই থেকে প্রথমেই  দিয়ে ১০০১৫০   Bদিয়ে ১০০১৫০     C দিয়ে ১৫০২০০  এই ভাবে  ……ওয়ার্ড মুখস্ত করি অথবা লিখে লিখে মুখস্ত করি । আমি বলছি না পদ্ধতি টা সঠিক নয় । অনেকেরই এতেই সুবিধা । কিন্তু আমি বলব একটু কষ্ট করে যদি প্রথমেই চোখ কান বন্ধ করে মুখস্ত শুরু  না করে  একবার  শব্দ গুলিকে জাস্ট রিডিং মেরে  রাখা । এর পর শব্দ  গুলিকে একটু গোষ্ঠী বদ্ধ করা । যেমন গরুর গোয়ালে গরু থাকে ছাগলের গোয়ালে ছাগল মহিষের গোয়ালে মহিষ ঠিক সেই রকম ওয়ার্ড গুলিকে আমাদের গোয়ালে আলাদা আলাদা করে নিলে প্রথম পর্যায়ে একটু খাটনি হবে ঠিকই কিন্তু পরে  অনেক সুবিধা হয়ে যাবে । কোন কোন শব্দ গুলিকে আমরা গোষ্ঠী বদ্ধ করব । শব্দ গুলিকে যে ডাইরেক্ট সিনোনিম বা অ্যান্টোনিম হতে হবে তা নয় । বরং যে সকল শব্দ গুলির অর্থ মোটা মুটি ভাবে কাছা কাছি তাদের কে এক সঙ্গে নিয়ে এক এক দিন একটা করে শব্দ এখানে নাউন ফর্ম বা ভার্ব ফর্ম আলাদা করে না নিয়ে একসাথে রাখলেও চলবেনিয়ে আলোচনা করতে হবে ও সেগুলিকে রপ্ত করার চেষ্টা করতে হবে ।

। দেখা যাবে একই ধরনের শব্দ গুচ্ছ কে আমরা যদি আলাদা আলাদা করে নিই তাহলে একটা  শব্দ দিয়েই হয়তো ৩০৪০ ওয়ার্ড তৈরী করে নিতে পারবে ।

। এরপর শব্দ গুলি সমার্থক হলেও তাদের মধ্যে অর্থের যে সূক্ষ্ম সূক্ষ্ম পার্থক্য রয়েছে সেগুলি মনে রাখতে সহজ হবে ।

। একদিনে প্রবল উৎসাহ নিয়ে প্রচূর শব্দ অভ্যাস না করে রুটিন করে অন্যান্য পড়াশোনার ফাঁকে ফাঁকে প্রতিদিন একটা  করে শব্দ নিয়ে নিজেকে তৈরী করুন ।

সে শব্দের সকল সমার্থক ও বিপরীতার্থক শব্দের সংকলনগুলিকে বার বার করে লিখে অভ্যেস করুন ।

। ডিকশনারির কোনো বিকল্প নেই – তাই একটু কনফিউশন হলেই ডিকশনারি কনসাল্ট করুন ।সেখানে ইউসেজ সমন্ধেও ও ভাল একটা ধারনা তৈরী হবে ।

।  যতই পদ্ধতি অবলম্বন  করুন না কেন যদি বোকার মত চোখ কান বুজে আমরা মুখস্ত শুরু করি তাহলে কয়েক দিন পরেই দেখবেন ভুলতে শুরু করেছেন ।তাই ফ্রেঞ্জিড ক্র্যামিং বা বোকার মত মুখস্ত বন্ধ করুন । প্রতিটি  ওয়ার্ড শেখার পর পরই সেগুলিকে দিয়ে একটি করে সেন্টেন্স লেখার চেষ্টা করুন । সেন্টেন্সে ব্যবহার করতে পারলেই শব্দ গুলি মনে থাকবে অনেক দিন । একটা উদাহরন দিই–  candid  মানে অকপট  , আমরা যদি candid  মানে অকপটcandid  মানে অকপট, candid  মানে অকপট এই ভাবে পড়তে থাকি কিছুদিন পরএই হয়তো সেটা  candid  মানে ক্যান্ডি জাতীয় চকলেট  হয়ে যাবে । তাই candid  মানে অকপট বা উদার পড়ার পর candid  দিয়ে দু তিনটি ওয়ার্ড লিখে ফেলুন এবং সেগুলিকে সুযোগ পেলেই ব্যবহার করুন ।

যেমন – We were pleased   with his candidness .

              I gave him my candid opinion.  

             He made a candid confession.    ইত্যাদি ।।ইত্যাদি । শব্দ গুলি তৈরীর ক্ষেত্রে অসুবিধা হলে কোনো ভালো ডিকশনারির সাহায্য নিতে পারেন ।

। আবার মনে করিয়ে দিই এক দিনে একটার বেশি শব্দ নিয়ে আলোচনা না করায় শ্রেয় ।  

এবার আমি আমার আজকের লেসনে  মাত্র পাঁচটি শব্দ নিয়ে আলোচনা করব  দেখবেন ঠিক ঠাক শিখতে পারলে ১০০১২০ টি ওয়ার্ড স্টক হয়ে যাবে ।                     

                                        So, Let’s start 

আমাদের প্রথম শব্দ  যেটা  নিয়ে আমরা আলোচনা শুরু করব  সেটা হল     প্রশংসা’ বা প্রশংসা করা 

 

আমাদের দ্বিতীয় শব্দ  যেটা নিয়ে আমরা আলোচনা শুরু করব  সেটা হল     অসভ্য  বা অশিষ্ট বা অসভ্যতা

 

আমাদের তৃতীয়  শব্দ  যেটা নিয়ে আমরা আলোচনা শুরু করব  সেটা হল     অসৎ ’ বা ধূর্ত বা অসততা

 

 

 

 

আমাদের  পঞ্চম  শব্দ  যেটা নিয়ে আমরা আলোচনা শুরু করব  সেটা হল     অকপট   বা সরল বা সরলতা

 

 

 

আজ এই পর্যন্তই । আবার দেখা হবে আগামী সংখ্যায়- সকলে সুস্থ থাকুন ও ভালো থাকুন । কেমন লাগল জানাবেন আর কোনো রকম অসুবিধা হলেও অবশ্যই কমেন্টের মাধ্যমে জানান । 

  

    To down load This note in PDF format

             CLICK HERE 

 

 

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: